২ লাখ ১২ হাজার ৬১১ টাকা আয়কর দিলেন অর্থমন্ত্রী

Muhit.jpg

নিজস্ব প্রতিবেদক : ২০১৬-১৭ করবর্ষে মোট ২ লাখ ১২ হাজার ৬১১ টাকা আয়কর দিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। সোমবার তিনি সচিবালয়ে অনলাইনে এই বিবরণী দাখিল করেন। অর্থমন্ত্রী আগের বছর ১ লাখ ১৭ হাজার ৫৩৩ টাকা কর দিয়েছিলেন।

অর্থমন্ত্রী জানিয়েছেন, ২০১৫-১৬ করবর্ষে তার আয়ের পরিমাণ ছিল ২৭ লাখ ৯৪ হাজার ৯৬৭ টাকা আর সম্পদ ছিল ১ কোটি ৭৪ লাখ ৫১ হাজার ৫৬০ টাকার। তিনি আরো জানান, ২০১৬-১৭ করবর্ষে তার আয় দাঁড়িয়েছে ৩৪ লাখ ২৫ হাজার ৪২ টাকা। আর সম্পদের পরিমাণ ১ কোটি ৯৮ লাখ ৪১ হাজার ৮৬ টাকা।

ব্যক্তিশ্রেণির আয়কর রিটার্ন জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ৩০ নভেম্বর।  অন্য বছর এমন শেষ সময়ে রিটার্ন জমার জন্য করদাতাদের মধ্যে তোড়জোড় থাকে এবং বিভিন্ন ব্যবসায়ী ও পেশাজীবী সংগঠনের পক্ষ থেকে সময় বাড়ানোর দাবি ওঠে। কিন্তু এবার আর সেই পরিস্থিতি নেই। কারণ চলতি অর্থবছরে ৩০ নভেম্বর রিটার্ন জমা দেয়ার সময় বেঁধে দিয়ে অর্থবিল পাস করা হয়েছে।

রিটার্ন জমা দেয়ার আর সময় বাড়বে না বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী। করদাতাদের মধ্যে যারা এখনো রিটার্ন দেননি, তাদেরকে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংগ্রহে তৎপর হতে পরামর্শ দেন তিনি।

৩০ নভেম্বরের মধ্যে যারা রিটার্ন জমা দিতে পারবেন না, তাদের বাড়তি টাকা গুনতে হবে। নির্ধারিত করের ওপর মাসিক ২ শতাংশ হারে সুদ দিতে হবে। এমনকি যৌক্তিক কারণ দেখিয়ে কোনো করদাতা যদি সময় বাড়িয়েও নেন, তবু এ বিলম্ব সুদ দিতেই হবে। যুক্তিসংগত কারণ দেখিয়ে আবেদন করলে উপ কর কমিশনার দুই মাস সময় বাড়িয়ে দিতে পারেন।

গতবারের মতো এ বছরও আড়াই লাখ টাকার বেশি আয় হলে বার্ষিক আয়কর বিবরণী বা রিটার্ন জমা দিতে হবে। তবে আড়াই লাখ টাকার কম আয় হলেও কয়েক শ্রেণির করদাতাদের অবশ্যই রিটার্ন জমা দিতে হচ্ছে। গাড়ির মালিক ও অভিজাত ক্লাবের সদস্য হলেও বাধ্যতামূলক রিটার্ন জমা দিতেই হবে। এ ছাড়া চিকিৎসক, প্রকৌশলী, আইনজীবী, হিসাববিদদের মতো পেশাজীবীদের করযোগ্য আয় না থাকলেও এনবিআরকে আয়-ব্যয় বিবরণী জানাতে হবে। সব মিলিয়ে পেশাজীবী, ব্যবসায়ী, উদ্যোক্তা, ঠিকাদার, জনপ্রতিনিধি, সরকারি চাকরিজীবীসহ ২০ ধরনের করদাতাদের রিটার্ন জমা বাধ্যতামূলক।

Share this post

scroll to top