লিটন হত্যায় উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক : গাইবান্ধা-১ আসনের সাংসদ মনজুরুল ইসলাম লিটন হত্যার ঘটনায় এবার গ্রেপ্তার করা হয়েছে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান আহসান হাবিব মাসুদকে। রোববার সকালে সুন্দরগঞ্জ বাজার এলাকার বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

স্থানীয় একাধিক সূত্র জানিয়েছে, মাসুদ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত। তবে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তাদের কমিটিতে মাসুদের কোনো পদ নেই। সুন্দরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতিয়ার রহমান, মাসুদকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তাকে প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি। এদিকে গেল শুক্রবার রাতে জিজ্ঞাসাবাদের অজুহাতে মাসুদকে পুলিশ উঠিয়ে নিয়ে যায় বলে অভিযোগ করেছে মাসুদের পরিবার। যদিও এ অভিযোগ অস্বীকার করেছে পুলিশ।

এর আগে, লিটন হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তার জামায়াত-শিবিরের ছয় নেতা-কর্মীর সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে আদালত। পুলিশের আবেদনের প্রেক্ষিতে শুনানি শেষে রোববার গাইবান্ধার অতিরিক্ত মুখ্য বিচারিক হাকিম ময়নুল হাসান ইউসুফ এই আদেশ দেন। গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে সুন্দরগঞ্জ থানায় নাশকতার মামলা রয়েছে বলে জানা গেছে।

গেল ৩১ ডিসেম্বর সুন্দরগঞ্জের বাড়িতে ঢুকে গুলি করে সাংসদ মনজুরুল ইসলাম লিটনকে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এই ঘটনায় লিটনের বোন বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামি করে সুন্দরগঞ্জ থানায় মামলা করেন। পরে পুলিশও একটি মামলা করে। এই ঘটনায় সন্দেহভাজন ১৮ জনকে আটক করা হয়েছে। সাংসদের আত্মীয়, দলীয় নেতাকর্মী, বাড়ির কাজের লোকসহ অনেককে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তার মোবাইল ফোনের কলতালিকাও পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। সাংসদ, তার স্ত্রী ও বাড়ির কর্মচারীরা হত্যাকাণ্ডের দিন বা আগের দিন মোবাইল ফোনে যেসব কথাবার্তা বলেছেন, সেগুলো খতিয়ে দেখা হচ্ছে। হত্যার আগের দিন ও হত্যার দিন যারা লিটনের সঙ্গে দেখা করেছেন, তাদের সম্পর্কেও খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তদন্ত সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

scroll to top