দুর্নীতিবাজদের বিচার চলবেই : প্রধানমন্ত্রী

হাসিনা.jpg

নিজস্ব প্রতিবেদক : বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মামলার রায়ের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আদালত বিচার করেছে, রায় দিয়েছে। এতে তাকে বা তার দলকে দোষারোপ এবং সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন করার কী যুক্তি থাকতে পারে, সেটা বোধগম্য নয় বলে মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী।

ইতালির রোমে প্রবাসী বাংলাদেশিদের দেয়া এক সংবর্ধনায় এই কথা বলেন শেখ হাসিনা।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায় ঘোষণা করেন বিশেষ আদালতের বিচারক ডা. মো. আখতারুজ্জামান। রায়ে তিনি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন। এ ছাড়া বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ পাঁচ আসামিকে ১০ বছর করে কারাদণ্ড এবং দুই কোটি ১০ লাখ টাকা করে জরিমানা করা হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই মামলা তো আওয়ামী লীগ দেয়নি। মামলা করা হয় ২০০৭, শুরু হয় পরের বছর ২০০৮-এ। ১০ বছর মামলা চলেছে। ২৩৬টা দিন মামলার তারিখ পড়েছে। এই ২৩৬ দিনের মধ্যে খালেদা জিয়া কোর্টে হাজির হয়েছেন মাত্র ৪০ দিন। তার আপত্তিতে তিনবার কোর্ট বন্ধ হয়েছে।

শেখ হাসিনা প্রশ্ন করেন, তাহলে কেন-ই বা রায় নিয়ে সরকারকে দোষারোপ করছে বিএনপি? এ ছাড়া স্বাধীন বিচার বিভাগের কারণেই বিএনপি নেত্রী সব ধরনের আইনি অধিকার পাচ্ছেন বলেও জানান তিনি।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জনগণের টাকা আত্মসাৎ করবে, এতিমের টাকা আত্মসাৎ করবে। এটা মহাঅন্যায়। এ সময় তিনি বলেন, দুর্নীতি যারা করবে, সন্ত্রাস যারা করবে। জঙ্গিবাদের সঙ্গে যারা জড়িত, তাদের বিচার হতেই হবে। কারণ বাংলাদেশকে একটা শান্তিপূর্ণ দেশে আনতে চায় তার সরকার। দেশে দুর্নীতি, জঙ্গিবাদ, স্বজনপ্রীতি নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হলেই বাংলাদেশের মানুষের উন্নতি হবে।

এর আগে ইন্টারন্যাশনাল ফান্ড ফর এগ্রিকালচারাল ডেভেলপমেন্টের (ইফাদ) ৪১তম পরিচালনা পরিষদের উদ্বোধনী অধিবেশনে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বুধবার স্থানীয় সময় রাত ১০টায় আবুধাবির উদ্দেশে ইতালি ছাড়বেন শেখ হাসিনা। ১৬ ফেব্রুয়ারি দেশে ফিরবেন প্রধানমন্ত্রী।

Share this post

scroll to top