আইফোন এক্স নিয়ে উন্মাদনা, বেড়েছে অ্যাপলের শেয়ারের দাম

নিজস্ব প্রতিবেদক: বহুদিন পর আবারো আইফোন নিয়ে উন্মাদনা। আউটলেটগুলোতে প্রযুক্তি প্রেমিদের লাইন বাড়ছেই। বিশ্বের বড় শহরগুলোতে মানুষ হুমড়ি খেয়ে পড়ছে অ্যাপলের সবশেষ স্মার্টফোন আইফোন এক্সের জন্য। ভারতের এক আইফোন ভক্ততো বেশ আয়োজন করেই গেছেন। ঘোড়ায় চড়ে ঢাকঢোল পিটিয়ে হাতে প্ল্যাকার্ড নিয়ে তাতে আইফোন এক্স লিখে আউটলেটে গেছেন প্রিয় মোবাইল ফোনটি কিনতে।

বিশ্বের গণমাধ্যমগুলোতে নতুন আইফোন নিয়ে এমন উন্মাদনার খবর বেরিয়ে আসছে। শুক্রবার বাজারে আসার পরই অনেক আউলেটে শেষ হয়ে গেছে নতুন এই ফোন। তারপরও সিঙ্গাপুর, সানফ্রান্সিকোর মতো বড় শহরগুলোতে দেখা গেছে ক্রেতাদের ভিড়। লন্ডনের আউটলেটেতো রীতিমত গাদাগাদি করে লাইন ধরেছে ক্রেতারা। আগের সবগুলো মডেল থেকে ভিন্ন নতুন এই মডেলটি প্রযুক্তি প্রেমিদের আকৃষ্ট করেছে।

ফলাফল, আবারো ব্যবসায় ঘুরে দাঁড়িয়েছে অ্যাপল। ২০১৫ সালের পর ব্যবসায় যে মন্দা এসেছিল আইফোন এক্স তা কাটিয়ে দেবে বলে আশা বিশ্লেষকদের। শেয়ারের দামও বেড়ে চলেছে। শুক্রবারের পর শনিবারও যুক্তরাষ্ট্রের পুঁজিবাজারগুলোতে অ্যাপলের শেয়ারের দাম বৃদ্ধি অব্যাহত ছিল। এ দিন অ্যাপলের শেয়ারের দাম বেড়েছে ২.৮ শতাংশ। বিশ্লেষকরা ধারণা করছেন, আইফোন এক্স উন্মাদনায় আবারো নতুন ইতিহাস রচনা হবে।

পরিসংখ্যানে দেখা যায়, ২০০৭ সাল থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত বেড়েছে আইফোন বিক্রি। ২০১৫ সালে সর্বোচ্চ ২৩ কোটি ১২ লাখ পিস বিক্রি হয়। তবে পরের বছর আইফোন সিক্স বাজারে ভালো সাড়া ফেলতে না পারায় অ্যাপলের ব্যবসায় ধস নামে। ওই বছর আইফোন বিক্রি কমে দাঁড়ায় ২১ কোটি ১৯ লাখে। তবে চলতি বছর এখন পর্যন্ত আইফোন বিক্রির পরিমাণ ২১ কোটি ৬৮ লাখ ছাড়িয়েছে।

বিশ্লেষকরা ধারণা করছেন, বছর শেষে এই পরিমাণ আগের যে কোনো রেকর্ড ছাড়িয়ে যাবে। আইফোন সেভেনের ব্যাটারিতে সমস্যার কারণে আগুন ধরে যাওয়া, ইউরোপীয় কমিশনের কাছে বড় অংকের জরিমানার মুখে পড়ে ইমেজ সংকটে পড়েছে স্টিভ জবসের টেক জায়ান্ট অ্যাপল। নতুন আইনফোন এই সংকট কাটিয়ে উঠতে সহায়তা করবে বলে আশা করছেন বিশ্লেষকরা।

print