আসাদ শফিকের সেঞ্চুরিতে পাকিস্তানের চমক, খেলা পঞ্চম দিনে

AUS-vs-PAK-04.jpg

স্পোর্টস রিপোর্টার : ব্রিসবেন টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার কাছে পাকিস্তান বিশাল ব্যবধানে হারতে যাচ্ছে- তৃতীয় দিন শেষে এমনটা মনে হওয়া ছিল স্বাভাবিক। কিন্তু ঘটলো উল্টো। টেস্ট ক্রিকেটের স্বভাবসুলভ রহস্য নিয়ে ম্যাচটা গড়াল পঞ্চম দিনে।

চতুর্থ দিন নির্ধারিত সময়ের থেকে এক ঘণ্টা বেশি খেলিয়েও ম্যাচটা শেষ করা যায়নি। দুই উইকেটের লেজ রেখে দিয়েছে পাকিস্তান। এদিন এক ঘণ্টা বেশি খেলার কারণও আছে, বৃষ্টির জন্য দ্বিতীয় সেশন দেরিতে শুরু হয়। সোমবার ম্যাচের শেষ দিন ঝড়ের পূর্বাভাসও রয়েছে। তাই ম্যাচ অফিসিয়ালরা চাচ্ছিলেন টেস্টটা চতুর্থ দিনেই শেষ হয়ে যাক। কিন্তু পাকিস্তান তা হতে দেবে কেন। শেষ দিনের রহস্য এবং অনিশ্চয়তা ধরে রেখেছে তারা।

ব্রিসবেনের প্রকৃতি যেমন পাকিস্তানকে সাহায্য করেছে, তেমনি পাকিস্তানের ব্যাটসম্যানরাও জানপ্রাণ দিয়ে লড়ে গেছেন ম্যাচের আয়ু বাড়াতে। সোমবার খেলা হলে অস্ট্রেলিয়া সকালের সেশনেই জিতে যেতে পারে। কারণ জিততে পাকিস্তানের দুই ব্যাটসম্যানকে আউট করতে হবে অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের। আর পাকিস্তানকে জিততে হলে করতে হবে আরো ১০৮ রান। আর এমন কিছু করলে টেস্ট ক্রিকেটের একটা ইতিহাস নতুন করে লিখতে হবে। চতুর্থ ইনিংসে ৪৯০ রান করে জেতার বিশ্বরেকর্ড হবে এটি।

টেস্ট ক্রিকেটে চতুর্থ ইনিংসে সর্বোচ্চ ৪১৮ রান করে জয়ের রেকর্ড আছে। ২০০২-০৩ মৌসুমে এই অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ওয়েস্ট ইন্ডিজ জিতেছিলো। আর সে রেকর্ড হয়েছিল অস্ট্রেলিয়াতেই। এবার নতুন একটা রেকর্ডের কীর্তি হলে মন্দ হয় না। সিরিজটা জমে উঠে।

৪৯০ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে পাকিস্তান তৃতীয় দিন শেষ করে ২ উইকেটে ৭০ রানে। আজহার আলী ৪১ এবং ইউনুস খান শূন্যতে অপরাজিত ছিলেন। চতুর্থ দিন এ জুটি ৭৫ রান যোগ করেন। আজহার আউট হন ৭১ রানে। ইউনুস খান হাফ সেঞ্চুরিতে পৌঁছানোর আগেই বৃষ্টি হানা দেয়। আর এ বিরতিতে ম্যাচ থেকে মনযোগ হারান ইউনুস। ৬৫ রানে আউট হন তিনি। এরপর মিসবাহ উল হক ৫ রানে ফিরে গেলে পাকিস্তানের ইনিংস দ্রুত গুটিয়ে যাওয়ার শঙ্কায় পড়ে। কিন্তু না, একজন বুক চিতিয়ে ক্রিজে দাঁড়িয়ে যান, তিনি আসাদ শফিক। যিনি ১০০ রান করেও উইকেট অক্ষত রেখেছেন। আর তাকে সঙ্গ দিয়ে গেছেন শরফরাজ আহমেদ, মোহাম্মদ আমির এবং ওয়াহাব রিয়াজ। আমির বোধহয় জীবন বাজি রাখতেও প্রস্তুত ছিলেন এদিন। ৬৩ বলে ৪৮ রানের দুর্দান্ত একটা ইনিংস খেলেছেন এই ফাস্ট বোলার। এভাবেই পাকিস্তান দ্বিতীয় ইনিংসটাকে রানে রানে সমৃদ্ধ করে তোলে। ৮ উইকেটে ৩৮২ রান এখন তাদের।

অস্ট্রেলিয়া প্রথম ইনিংসে ৪২৯ রান করে পাকিস্তানকে ১৪২ রানে বেঁধে ফেলে। ২৮৭ রানে এগিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংস খেলতে নামে তারা। ৫ উইকেটে ২০২ রান করে ইনিংস ঘোষণা করে অজি শিবির। লিড হয় ৪৮৯ রানের। পাকিস্তানের টার্গেট দাঁড়ায় ৪৯০ রানের।

Share this post

scroll to top