চৌত্রিশে পা, শুভ জন্মদিন মাশরাফি

স্পোর্টস রিপোর্টার : জাতীয় ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার জন্মদিন আজ। ৩৩ পেরিয়ে ৩৪-এ পা দিলেন তিনি। শুভ জন্মদিন ক্যাপ্টেন।

বাংলাদেশের সবচেয়ে সফল অধিনায়কদের একজন মাশরাফি। অনেকে সফলতমও বলে থাকেন। চোট তার ক্রিকেট ক্যারিয়ারকে বারবার থামিয়ে দিতে চেয়েছিল। কিন্তু দৃঢ় মনোবল যে চোটকেও বশে আনতে পারে, তাই করে দেখিয়েছেন মাশরাফি। ১৯৮৩ সালের এ দিনে নড়াইলে জন্ম তার। ছোটবেলা থেকেই দুরন্ত ছিলেন। তার দুরন্তপনায় কোনোভাবেই রাশ টানতে পারতেন না বাবা গোলাম মুর্তজা স্বপন ও মা হামিদা বেগম।

দুরন্ত এই ছেলেটাই যে একদিন বিশ্বে বাংলাদেশকে অনন্য এক উচ্চতায় নিয়ে যাবে, তখন সেটা কে-ইবা ভেবেছিল! ছোটবেলা থেকেই ক্রিকেট ও ব্যাডমিন্টনে দুর্বলতা ছিল মাশরাফির। পাড়ার ক্রিকেটে লুকিয়ে খেলতে যেতেন। ভালো ক্রিকেটার হিসেবে পাড়ায় সুনামও ছিলো। পাড়ার সবাই মাশরাফিকে ডাকতেন কৌশিক নামে।

ব্যাটে-বলে সমান পারদর্শী মাশরাফি ১৯৯১ সালে বিকেএসপির ক্যাম্পে সুযোগ পান। সেখানে অসাধারণ পারফরম করার পর ধীরে ধীরে অনুর্ধ্ব-১৭, অনুর্ধ্ব-১৯ দলে জায়গা করে নেন। সেই থেকে অবিরাম ছুটে চলা। ২০০১ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট ম্যাচ দিয়ে অভিষেক হয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। অভিষেক ম্যাচ থেকেই ব্যাটসম্যানদের চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়ান নড়াইল এক্সপ্রেস।

ইনজুরি বারবার তাকে থামিয়ে দেয়ার চেষ্টা না করলে, বিশ্ব ক্রিকেটে আরো অনেক বেশি দ্যূতি ছড়াতে পারতেন মাশরাফি। দুই পা বহুবার ডাক্তারের ছুরি-কাঁচিতে কাটা পড়েছে। কিন্তু কখনো মনোবল হারাননি। ইনজুরির কারণে খেলতে পারেননি ২০১১ বিশ্বকাপ। এই কষ্টে তার চোখের পানি বুঝিয়ে দিয়েছিল, ক্রিকেটকে কতোটা ভালবাসেন মাশরাফি।

যার রক্তে ক্রিকেট তিনি কিভাবে ক্রিকেট ছেড়ে থাকতে পারেন? ইনজুরিও পারেনি। নিজেকে ফিট রাখার যুদ্ধে নামেন মাশরাফি। যুদ্ধ জয় করে আবারো আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরেন। এবারের ফেরাটা বীরের বেশে। ফেরার পর ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়কের দায়িত্ব পান মাশরাফি। তার নেতৃত্বে বাংলাদেশ দল যেন জাদুর কাঠির ছোঁয়ায় বদলে যেতে থাকে।

নিজেকে বাংলাদেশ ক্রিকেটের সফলতম অধিনায়কের কাতারে নিয়ে যেতে থাকেন মাশরাফি। তার নেতৃত্বেই ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশে সেরা সাতে এসেছে। তার অধিনায়কত্বে বাংলাদেশ ৪৭টি ওয়ানডে খেলে ২৭টিতে জয় পায়। তার নেতৃত্বে বাংলাদেশ শ্রীলঙ্কা, ভারত, পাকিস্তান ও দক্ষিণ আফ্রিকার মতো পরাক্রমশালী দলগুলোকে সিরিজে হারিয়েছে। মাশরাফির নেতৃত্বেই ওয়ানডে বিশ্বকাপে বাংলাদেশ প্রথমবারের মতো কোয়ার্টার ফাইনাল খেলেছে। চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে প্রথমবারের মতো সেমিফাইনালে উঠেছে টাইগাররা।

দলগত এসব সাফল্যের ভিড়ে নিজেকেও তিনি নিয়ে গেছেন অন্য এক উচ্চতায়। ওয়ানডেতে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ উইকেটে শিকারী তিনি। ১৭৯টি ওয়ানডে খেলে উইকেট নিয়েছেন ২৩২টি। ব্যাট হাতে আছে ১৫৮৭ রানও।

টেস্ট দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হলেও ইনজুরির কারণে বেশি টেস্ট খেলা হয়নি তার। ৩৬ টেস্ট খেলে উইকেট নিয়েছেন ৭৮টি। চলতি বছর অবসর নিয়েছেন টি-টোয়েন্টি অধিনায়কত্ব থেকেও। ৫৪টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলে উইকেট নিয়েছেন ৪২টি।

আজ শুধু মাশরাফির জন্মদিন না। আজ মাশরাফি পুত্র শাহেল মুর্তজারও জন্মদিন। ২০১৪ সালের এ দিনে ঢাকায় জন্ম নেয় শাহেলও।

শুভ জন্মদিন মাশরাফি বিন মুর্তজা ও শাহেল মুর্তজা।

scroll to top