পুঁজিবাজারে আবারো বড় পতন

Share-Bazar-08.jpg

নিজস্ব প্রতিবেদক : আবারো বড় পতনের মুখে পড়লো দেশের পুঁজিবাজার। বৃহস্পতিবারের পর রবিবারও সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে সূচক পড়েছে প্রায় ১শ পয়েন্ট আর চট্টগ্রাম স্টকে দেড়শ পয়েন্টের বেশি। আগের কার্যদিবসের তুলনায় কমেছে লেনদেনও। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের কৌশলগত মালিকানা নিয়ে চীন ও ভারতের রশি টানাটানিতে আবারো বিনিয়োগকারীরা আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন বলে মনে করেন বিশ্লেষকরা। ডিএসইর শেয়ার বিক্রি নিয়ে এই ধরনের পরিস্থিতি দু:খজনক ও হতাশার বলে মনে করেন তারা।

ডিএসইর ২৫ শতাংশ শেয়ার বিক্রি করার জন্য উন্মুক্ত দরপত্রে অংশ নিয়ে চীন শেয়ার প্রতি ২২ টাকা দর প্রস্তাব করে। অন্যদিকে ভারতের ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জ প্রস্তাব করে ১৫ টাকা। স্বভাবতই চীনের প্রস্তাবকে বেছে নেয় ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের পরিচালনা পর্ষদ। তবে কম টাকা প্রস্তাব করেও রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে ঢাকা স্টকের শেয়ার কিনতে চাইছে ভারতীয় প্রতিষ্ঠান। এই প্রভাব নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে দুর্নীতি বিরোধী সংগঠন ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনালের বাংলাদেশ চ্যাপ্টার, টিআইবিও। তবে টিআইবি’র উদ্বেগকে অমূলক বলে উড়িয়ে দিয়েছে বাজার নিয়ন্ত্রণকারী প্রতিষ্ঠান বিএসইসি।

রবিবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৯৯.৪৩ পয়েন্টের বেশি পড়ে হয়েছে ৫ হাজার ৯৫০ পয়েন্ট। অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের প্রধান সূচক সিএসসিএক্স সাড়ে ১৭৮.৩৫ পয়েন্ট পড়ে হয়েছে ১১ হাজার ১১৮ পয়েন্ট। সূচকের পতনের সাথে সাথে লেনদেনও কমেছে। ঢাকায় লেনদেন আগের দিনের তুলনায় প্রায় একশ কোটি টাকা কমে হয়েছে ৪৪০ কোটি টাকা। আর চট্টগ্রাম স্টক একক্সচেঞ্জে ৩০ কোটি টাকার বেশি শেয়ার হাতদবল হয়েছে।

এদিন লেনদেন হওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে বেশির ভাগেরই দাম কমেছে। ঢাকায় লেনদেন হওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে দাম বেড়েছে মাত্র ৪৯টির, কমেছে ২৭০১টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৭টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম। শেয়ার হাতবদল হওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে দাম বেড়েছে ৩০টির,কমেছে ১৮২টির এবং অপরিবর্তিত আছে ১৫টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম।

দর বৃদ্ধি ও দরপতনে শীর্ষ দশ: ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) শেয়ার লেনদেন হওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে রবিবার দাম বাড়ার শীর্ষে ১০টি প্রতিষ্ঠান ছিল ফাইন ফুডস (৯.৮৭%), ইনফরমেশন টেকনোলজি (৬.৯৬%), অ্যাপেক্স ফুডস (৬.০৯%), মেট্রো স্পিনিং (৬.০১%), ম্যাকসন স্পিনিং (৪.৬৭%), ইস্টার্ন ক্যাবল (৪.৪৭%), অ্যাপেক্স স্পিনিং (৪.৩৮%), সিভিও পেট্রো কেমিক্যালস (৪.২৬%), লিগাসি ফুটওয়্যার (৪.০৯%) এবং ফুওয়াং ফুড (৩.৮৬%)

এদিন ঢাকায় শেয়ার লেনদেন হওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে দরপতনে থাকা শীর্ষ ১০টি প্রতিষ্ঠান ছিল বেক্সিমকো সিনথেটিক (৯.২১%), ঢাকা ডাইং (৭.৩৩%), উত্তরা ব্যাংক (৬.৮৬%), প্রাইম ব্যাংক (৬.১৬%), হক্কানী পাল্প (৫.৮৭%), আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজ (৫.৭৪%), বঙ্গজ (৫.৪৫%), ইস্টার্ন ব্যাংক (৫.২৮%), অলটেক্সটাইল (৫.১৪%) ও খুলনা পাওয়ার (৪.৯৫%)

চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) দাম বাড়ায় শীর্ষে থাকা ১০টি প্রতিষ্ঠান ছিল ফাইন ফুডস (৯.৯৪%), অ্যাপেক্স ফুডস (৬.৮৩%), মেট্রো স্পিনিং (৬.০১%),ইনফরমেশন সার্ভিসেস (৫.৯৭%), ম্যাকসন স্পিনিং (৪.৬৭%), অ্যাপেক্স স্পিনিং (৩.৮৬%), ফুওয়াং ফুড (৩.৮৬%), সিভিও পেট্রো কেমিক্যারস (৩.৮৩%), লিগাসি ফুটওয়্যার (৩.৭৬%) ও আনোয়ার গ্যালভানাইজিং (৩.৪৫%)

এদিন চট্টগ্রামে শেয়ার লেনদেন হওয়া প্রতিষ্ঠান গুলোর মধ্যে দরপতনে থাকা শীর্ষ ১০টি প্রতিষ্ঠান ছিল এসইএম লেকচার ইকুইটি ফান্ড (৮.৮২%), অলটেক্সটাইল (৭.৯৭%), ইস্টল্যান্ড ইন্স্যুরেন্স (৭.৭৯%), ইস্টার্ন ব্যাংক (৭.৬%), প্রাইম সিমেন্ট (৭.৪৭%), ফার্স্ট ফাইন্যান্স (৭.৩১%), বেক্সিমকো সিনথেটিক (৬.৬৬%), ঢাকা ডাইং (৬.৪২%),এইচআর টেক্সটাইল (৬.৩২%) ও এনভয় টেক্সটাইল (৬.২৩%)।

Share this post

scroll to top