পতনেই আছে পুঁজিবাজার, লেনদেনও কমেছে

Share-Bazar-08.jpg

নিজস্ব প্রতিবেদক : টানা তিন কার্যদিবস পতনের মুখে পড়েছে দেশের পুঁজিবাজার। বৃহস্পতিবার ও রবিবারের পর সোমবারও সূচকের পতন দিয়ে শেষ হয়েছে পুঁজিবাজারের লেনদেন। এদিন ঢাকায় সূচক পড়েছে ১০ পয়েন্টের বেশি আর চট্টগ্রামে ৩৫ পয়েন্ট। দুই বাজারেই আগের দিনের তুলনায় কমেছে লেনদেন পরিমাণ। খালেদা জিয়ার রায়, মুদ্রানীতিতে ঋণ-আমানত অনুপাত কমিয়ে দেয়াকে সামনে রেখে মধ্য জানুয়ারি থেকেই পতনের মুখে পুঁজিবাজার।

এবারে যুক্ত হয়েছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) কৌশলগত অংশীদার কে হবে তা নিয়ে চীন ও ভারতের রশিটানাটানি। সবচেয়ে বেশি দর দিয়ে ডিএসইর ২৫ শতাংশ শেয়ার কেনার প্রস্তাব দেয় চীন। দেশটির চেয়ে ৫ টাকা কম দরপ্রস্তাব করেও এখন রাজনৈতিক ভাবে প্রভাব খাটিয়ে ভারতীয় প্রতিষ্ঠান এই শেয়ার কেনার চেষ্টা করছে। দুই দেশের এমন রশিটানাটানিতে বিনিয়োগকারীরা আতঙ্কিত হয়ে পড়ছেন বলে মনে করেন বিশ্লেষকরা।

সোমবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১০.৫১ পয়েন্ট পড়ে হয়েছে ৫ হাজার ৯৪০ পয়েন্ট। অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের প্রধান সূচক সিএসসিএক্স ৩৫.৫৩ পয়েন্ট পড়ে হয়েছে ১১ হাজার ৮৩ পয়েন্ট। সূচকের পতনের সাথে সাথে দুই বাজারেই কমেছে লেনদেন। ঢাকায় আগের দিনের তুলনায় প্রায় একশ কোটি টাকা কমে লেনদেন হয়েছে ৩৭৭ কোটি টাকা। এদিকে চট্টগ্রাম স্টক একক্সচেঞ্জে রবিবারের তুলনায় ৫ কোটি টাকা কমে লেনদেন হয়েছে ২৫ কোটি টাকা।

এদিন লেনদেন হওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে দাম কমার সংখ্যাই বেশি। ঢাকায় লেনদেন হওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে দাম বেড়েছে ১০৯টির, কমেছে ১৭৬টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৭টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম। অন্যদিকে শেয়ার হাতবদল হওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে দাম বেড়েছে ৬৫টির,কমেছে ১৩৬টির এবং অপরিবর্তিত আছে ২২টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম।

দর বৃদ্ধি ও দরপতনে শীর্ষ দশ: ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) শেয়ার লেনদেন হওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে সোমবার দাম বাড়ার শীর্ষে ১০টি প্রতিষ্ঠান ছিল অ্যাপেক্স স্পিনিং (৯.৮৬%), সিভিও পেট্রো কেমিক্যালস (৭.০৭%), সেন্ট্রাল ইন্স্যুরেন্স (৬.৪৩%), মিরাকল ইন্ডাস্ট্রিজ (৬.৩৬%), সোনালী আঁশ (৬.৩৪%), রংপুর ফাউন্ড্রি (৪.৮৯%), আম্বি ফার্মা (৪.৮৭%), জেএমআই মেডিকেল ডিভাইস (৪.৭১%), এশিয়া ইন্স্যুরেন্স (৩.৫৭%) এবং রেনইউক (৩.৫২%)

এদিন ঢাকায় শেয়ার লেনদেন হওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে দরপতনে থাকা শীর্ষ ১০টি প্রতিষ্ঠান ছিল রিপাবলিক ইন্স্যুরেন্স (৭.১৬%), ফুওয়াং সিরামিক (৪.৩৪%), আনোয়ার গ্যালভানাইজিং (৩.৫৫%), ফনিক্স ইন্স্যুরেন্স (৩.২২%), সাভার রিফ্যাক্টরিজ (৩.২%), ওসমানী গ্লাস (৩.১২%), জুট স্পিনিং (৩.০৮%), মেঘনা কনডেন্সড মিল্ক (৩.০৪%), তাকাফুর ইন্স্যুরেন্স (২.৯৯%) ও ফাস ফাইন্যান্স (২.৮৫%)

চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) দাম বাড়ায় শীর্ষে থাকা ১০টি প্রতিষ্ঠান ছিল অ্যাপেক্স স্পিনিং (৯.৬২%), সিভিও পেট্রো কেমিক্যালস (৮.২২%), মিরাকল ইন্ডাস্ট্রিজ (৭.১৪%), প্রাইম ফাইন্যান্স (৬.৪৮%), সোনারগাঁও টেক্সটাইল (৫.৩৪%), কন্টিনেন্টাল ইন্স্যুরেন্স (৪.৭৬%), জেএমআই মেডিকেল ডিভাইস (৪.৬৯%), রংপুর ফাউন্ড্রি (৪.৬৬%), পদ্মা লাইফ ইন্স্যুরেন্স (৩.৯২%) ও সিনোবাংলা ইন্ডাস্ট্রিজ (৩.৬৩%)

এদিন চট্টগ্রামে শেয়ার লেনদেন হওয়া প্রতিষ্ঠান গুলোর মধ্যে দরপতনে থাকা শীর্ষ ১০টি প্রতিষ্ঠান ছিল ইমাম বাটন (৬.৬১%), বাটা সু (৫.৮৮%), সন্ধানী লাইফ ইন্স্যুরেন্স (৫.৮৬%), ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্স (৪.৮৪%), ন্যাশনাল টি কোম্পানি (৪.৫৮%), এএফসি এগ্রো (৪.১১%), ফুওয়াং সিরামিক (৩.৮২%), শাসা ডেনিম (৩.৭৯%), লিবরা ইনফিউশন (৩.৭৭%) ও মার্কেন্টাইল ইন্স্যুরেন্স (৩.০৫%)

Share this post

scroll to top