সাকিবের উপর চটেছেন বোর্ডপ্রধান

স্পোর্টস রিপোর্টার: আজ আনুষ্ঠানিকতার শেষ দিন। অনুশীলনের পর শেষ সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হলেন মাশরাফি। আনুষ্ঠানিকভাবে জার্সি প্রকাশ এবং টিম ফটোসেশনও হলো আজকেই। সাকিব আল হাসানও আইপিএল থেকে দেশে ফিরেছেন। সবকিছুতেই থাকার কথা ছিল তার। কিন্তু সব কিছু ফাঁকি দিয়ে মাঠ থেকে চলে গেলেন তিনি। তাই তার উপর বেজায় চটেছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

বিকেল তিনটায় আনুষ্ঠানিক ফটোসেশন শুরু হওয়ার কথা ছিল। টিম ম্যানেজমেন্টের দাবি, তার কথা আগেও জানানো হয়েছিল সাকিবকে। তবে শেষ পর্যন্ত যোগ দেননি সাকিব। তাই ফটোসেশন হলো দলের ১৪ জনকে নিয়েই। অনুশীলনেও যোগ দেয়ার কথা ছিল তার।

দল থেকে এমন বিচ্ছিন্নতা কেন, তা জানতে চাইলে প্রায় অসহায় আত্মসর্মপণ করলেন বোর্ড সভাপতি। স্পষ্ঠতই বোঝা গেল, সাকিবের উপর অসন্তুষ্ট তিনি। ‘দুঃখজনক। আর কী বলব। এটা দলের ফটোসেশন ছিল। আমি এসেই যখন ঢুকছি তখন ফোন করেছিলাম সাকিবকে। কোথায় তুমি, বলল ‘আমি তো চলে এসেছি। আপনার বাসায় আসব রাত্রে।’ আমি বললাম ‘এখনি তো দেখা হওয়ার কথা।’ সে বলল ‘আমি তো বেরিয়ে গিয়েছি।’ আমি এসে জিজ্ঞেস করে জানলাম যে ওকে আগেই জানানো হয়েছিল যে আজ ফটোসেশন। জাতীয় দল যাচ্ছে, একসঙ্গে ফটোসেশন। সবাই থাকবে। আশা করেছিলাম সে থাকবে, কিন্তু সে থাকলো না।’

দলের একতায় সাকিবের এমন আচরণ ভাঙন ধরায় কিনা, সে প্রশ্নের জবাবেও অসহায় বোর্ডপ্রধান। “আমার মনে হয় দলের অন্যরা এতদিনে অভ্যস্ত হয়ে গেছে (সাকিবের আচরণে)। এছাড়া আর কি বলব। আমি মনে করে এটা ওর জন্যই দুর্ভাগ্য। ও যে আমাদের বিশ্বকাপ দলের সঙ্গে থাকতে পারল না ফটোসেশনে, আমি মনে করি ওরই কপাল খারাপ।”

তবে এভাবে সবসময় চলবে না, সেটাও সোজাসাপ্টাই জানিয়ে দিলেন। একদিন পরে দল ইংল্যান্ডে উড়াল দিবে বলে এগোচ্ছেন না বিষয়টা। ‘সাকিবের মেজাজ বুঝে চলার প্রশ্নই উঠে না। পরশুদিন দল চলে যাচ্ছে, তাই আর কথা বলতে চাই না এ নিয়ে। তবে এটি দুঃখজনক।’

print